হরিপুরে আত্মীয়দের সাথে দেখা না করেই বাড়ি গেলন স্বজনরা

এবার করোনা ভাইরাসের কারণে হয়নি সীমান্তে মিলনমেলা

0
210

জে.ইতি হরিপুর ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধিঃ

ঠাকুরগাঁওয়ের সীমান্ত বর্তী হরিপুর উপজেলার টেংরিয়া গোবিন্দপুর গ্রামে ৪ ডিসেম্বর শুক্রুবার সকালে জমুর কালী (পাথর কালী) জিউ পূজা উপলক্ষে প্রতি বছরের মত এবারও পূজার আয়োজন করেছিল জমুর কালী পূজা উদর্যাপন কমিটি। তবে প্রতি বছরের মত পূজা উপলক্ষে সীমান্তে বসে মিলনমেলা কিন্ত এবার তা হয়নি দেখা করতে পারেনি স্বজনরা উপরে থাকা তাদের আত্মীয়দের সাথে।
করোনা ভাইরাসের কারণে সীমান্তের কাঁটা তারের কাছে লোকজন ভিড় জমাতে দেয়নি ভারতীয় সীমান্ত রক্ষীবাহিনী।
এদিকে উপজেলা প্রশাসনের সূত্রে জানা যায়, জেলার হরিপুর উপজেলার ঐতিহ্যাবাহী বাংলাদেশ-ভারত মিলনমেলা। ভাতুরিয়া-তাজিগাঁও সীমান্তের নীভৃত গ্রাম টেংরিয়া গোবিন্দপুর কুলিক নদীর পাড়ে পাথর কালি পূজা উপলক্ষে বাংলাদেশ-ভারত মিলনমেলা শুরু হয় ইংরেজি মাস ডিসেম্বরের প্রথম সপ্তাহের শুক্রুবার দিনে এই পূজা উপলক্ষে ভারত-বাংলাদেশ মিলে কাঁটা তারের কাছে একদিন ব্যাপি বসে মিলনমেলা। এবার করোনা ভাইরাসের কারণে মিলনমেলা হয়নি এতে কাঁটা তারের বেড়ার উপারে থাকা আত্মীয়-স্বজনরা মিলিত হয়নি।
পীরগঞ্জের বাকলী রাণী (৫৭), চন্দ চাঁদ রায় (৬০) আমল (৪৭)সহ অনেকে বলেন, সকাল থেকে আমার আত্মীয়-স্বজনদের সাথে দেখা করার জন্য অপেক্ষায় রয়েছি দুপুর গড়িয়ে বেলা শেষের দিকে তারপরেও দেথা করতে পারছিনা। করোনা ভাইরাসের কারণে সব বন্ধ। আত্মীয়রা উপরে অপেক্ষায় রয়েছে তারাও কাঁটা তারের কাছে ভিড়তে পারছেনা। এবার পূজা পালন করে বাড়ি যাব। আগামী বছর দেখা করতে হবে।
পূজা কমিটির সভাপতি কালিকান্ত রায় বলেন, করোনা ভাইরাসের কারণে মিলনমেলা হয়নি শুধু পূজা পালন করা হয়েছে। গোবিন্দপুর ও চাপাসার সীমান্ত বাহিনীরা জানান, করোনা ভাইরাসের কারণে মিলনমেলা বন্ধ করে দিয়েছে ভারতীয় কতৃপক্ষ। কাঁটা তারের কাছে বাংলাদেশীরা যেনো না যায় সে জন্য আমাদের অনুরোধ করেছে তারা।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে