রাণীশংকৈলে এক চাষে ২ ফসল, ভূট্টাখেতে ঝিঙ্গা চাষ

0
83

ঠাকুরগাঁওয়ের রাণীশংকৈলে ভূট্টাক্ষেতে বিনা খরচে ঝিঙ্গা চাষে লাভোবান হয়েছে কৃষক। উপজেলার লেহেম্বা ইউনিয়নের চাপড় পার্বতীপুর (বেরাশি) নামক এলাকায় কৃষকরা ভূট্টাক্ষেতে ঝিংগা নামক সবজী আবাদ করায় উপজেলায় ব্যাপক সাড়া পাওয়া গেছে। কৃষকরা জানান, ভূট্টা চাষের পর ওই জমিতে আলু চাষ করা হয়। জমি পরিত্যক্ত না রেখে ভূট্টা ক্ষেতের মধ্যে ঝিংগা চাষ করা হয়েছে। এ সব জমিতে অগ্রীম আলু আবাদ করা হবে। স্বল্প সময়ে বিনা খরচে ঝিংগা উৎপাদন করেছে ওই এলাকার কৃষকরা। ভূট্টা ভাঙ্গার পর ডাঠা রয়ে যায়। ঝিংগার খুটি হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে ওই ডাঠা গুলো।
কৃষক মালেক, নেজামুল হক, সামশুল হক ও ইউসুফ সাংবাদিকদের জানান, কৃষি অধিদপ্তরের পরামর্শ ক্রর্মে ভূট্টা ক্ষেতে ঝিংগার আবাদ করেছে তারা। কৃষক মালেক জানান, ঝিংগা থেকে একর প্রতি অতিরিক্ত ৬০-৭০ হাজার টাকা আয় হয়েছে। সেই সাথে এলাকায় কৃটনাসক মুক্ত সবজির অভাব অনেকটায় দুর হয়েছে। কৃষি কর্মকর্তা সঞ্জয় দেবনাথ বলেন, খরিফ ১ মৌসুমে অথাৎ (মার্চ-এপ্রিল) মাসে ঝিংগার বীজ বপন করা হয়ে থাকে। তিনি বলেন, আধুনি প্রযুক্তি ব্যবহার করে ভূট্টা ক্ষেতে ঝিংগা উৎপাদন করার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে কৃষকদের।
ভূট্টাক্ষেতে ঝিংগার আবাদ শুনে, ইতো মধ্যে জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের প্রশিক্ষক সিরাজুল ইসলামের নেতৃত্বে সাংবাদিক, শিক্ষক, জনপ্রতিনিধিদের ২৫ সদস্য একটি টিম ওই সব এলাকা পরিদর্শন করেছেন। পরিদর্শনকালে উঠান বৈঠকে তিনি বলেন, উপজেলার কৃষি বিভাগের উজ্জল সম্ভাবনাময় প্রকল্পগুলো পরিদর্শন করে অনেক অভিজ্ঞতা সংগ্রহ করেছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে