মিথ্যা অপবাদে জেলে যেতে হচ্ছে সাংবাদিকদের- ঠাকুরগাঁওয়ে মির্জা ফখরুল

0
153

আমরা এখন ভোট দিতে পারিনা, কথা বলতে পারিনা, আমরা এখন লিখতে পারিনা। কিছুদিন আগে দেখা গেল কয়েকজন সাংবাদিকদের গ্রেফতার করা হয়েছে।

প্রথম আলোর সম্পাদক মতিউর রহমানের বিরুদ্ধে মার্ডার কেসের চার্জসিট দেয়া হয়েছে। দৈনিক সংগ্রাম পত্রিকার বৃদ্ধ সম্পাদক এখনো জেলে, বেইল পায় নি তিনি। বেইল পাওয়ার অধিকার তো সকলের। যদি কেউ অপরাধ করে তাহলে তার অপরাধের তো বিচার হতে হবে। কিন্তু আমরা এই অধিকার থেকে বঞ্চিত হচ্ছি। সারাদেশে এরকম অসংখ্য সাংবাদিক এখনো গ্রেফতার আছে। সাংবাদিকতা করার জন্য মিথ্যা অপবাদ নিয়ে জেলে যেতে হচ্ছে তাদের। আমরা কী এই রাষ্ট্র চেয়েছিলাম? তাহলে এটাকে আপনারা কি বলবেন!

আজ সকালে (৮ ডিসেম্বর) বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ঠাকুরগাঁওয়ে তার নিজ বাসভবনে সাংবাদিকদের সাথে এক মতবিনিময় সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, এখন দূর্ভাগ্য হচ্ছে সংবাদপত্র গুলো আর নিরপেক্ষ সংবাদপত্র নেই। কারন না হচ্ছে ভয়। ভয় টা এমন হয়েছে যে নিজেরা নিজেরাই সংবাদ কেটে দিচ্ছে। এটার কারণ টাই হচ্ছে যে, গণতন্ত্র বিহীন একটা সমাজ, গণতন্ত্র বিহীন একটা রাষ্ট্র এবং এই সরকার বেআইনীভাবে, জোর করে আমাদের সংবিধানকে লঙ্ঘন করে তারা ক্ষমতা পরিচালনা করে যাচ্ছে।

এই আওয়ামী লীগ সরকার স্বাস্থ্য খাতে যে পরিমাণ দূর্ণীতি করে তার এতটুকু অংশ যদি কৃষকদেরকে দিতে পারে। যেখানে অন্যান্য দেশগুলো শতকরা ৬০ ভাগ কৃষিবিভাগে ভর্তুকি প্রদান করে কিন্তু আমাদের এই বাংলাদেশে ২০ ভাগ ভর্তুকিও প্রদান করা হয় না সব লাফালাফি শুরু করে দেয়।

চিনিকল মিল সম্পর্কে ফখরুল আরো বলেন, এই মিলগুলোকে বন্ধ না করে আধুনিকায়ন করে লাভজনক করা সম্ভব। আমি আশা করব সরকার এই বিষয়গুলোকে অত্যন্ত গুরুত্বসহকারে নিয়ে ইতিবাচক একটা জায়গায় লাভজনক প্রতিষ্ঠানে পরিণত করবে।

মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন, জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মির্জা ফয়সল আমীন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নুরে শাহাদত সজল, জেলা যুবদলের সভাপতি আবু নুর, সদর উপজেলার সাধারণ সম্পাদক আব্দুল হামিদ, বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী আইন ছাত্র ফোরামের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি ও জেলা কৃষকদলের সদস্য এ্যাড. আশিকুর রহমান রিজভী সহ অন্যান্যরা।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে