তেঁতুলিয়ায় ২ কিশোরীকে গণধর্ষণ, গভীর রাতে উদ্ধার

0
149

প্রতীকী ছবি। বিগস্টক

সাজ্জাদুর রহমান সাজ্জাদ, পঞ্চগড়

দুই কিশোরীর বাবা অপহরণের পর ধর্ষণ ও ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগে দুটি মামলা দায়ের করেছেন

পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়া উপজেলায় দুই স্কুল ছাত্রীকে গণধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। বুধবার (২৫ নভেম্বর) বিকেলে এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে তিন যুবককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

গ্রেফতার ব্যক্তিরা হলো–ওমর ফারুক ইমন (২৬), মো. সোহাগ (২২) ও আনোয়ার হোসেন (২৬)।

পুলিশ বুধবার বিকেলে ওই দুই কিশোরীর ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে পাঠিয়েছে।

পুলিশ ও ভুক্তভোগীদের পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, আনোয়ার মঙ্গলবার (২৪ নভেম্বর) দুপুরে ওই দুই ছাত্রীকে বাড়ি থেকে তেঁতুলিয়া উপজেলার ভজনপুরের উদ্দেশে নিয়ে যায়। সারাদিন বিভিন্ন স্থানে ঘোরাঘুরির পর রাতে তাদেরকে ওমর ফারুক ইমনের কাছে হস্তান্তর করে সে। সেখান থেকে ইমন, আনোয়ার ও সোহাগ তাদেরকে দেবনগর ইউনিয়নে আব্বাস আলীর বাসায় নিয়ে যায়। সেখানে তারাসহ অপর আসামিরা ওই দুই কিশোরীকে ধর্ষণ করে। এতে তারা অসুস্থ্ হয়ে পড়লে তাদের ফেলে রেখে পালিয়ে যায় অভিযুক্তরা। খবর পেয়ে পরিবারের লোকজন গভীর রাতে সেখানে গিয়ে দুই কিশোরীকে উদ্ধার করে পুলিশকে খবর দেয়। পরে তেঁতুলিয়া থানার পুলিশ বুধবার দুপুরে ঘটনাস্থলে গিয়ে তাদের উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।

পরে থানায় দুই কিশোরীর জবানবন্দি অনুযায়ী অভিযান চালিয়ে ওই তিন যুবককে গ্রেফতার করে পুলিশ। এ ঘটনায় দুই কিশোরীর বাবা থানায় অপহরণ ও ধর্ষণের অভিযোগে মামলা দায়ের করেছেন।

তেঁতুলিয়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. জহুরুল ইসলাম জানান, দুই কিশোরীর বাবা অপহরণের পর ধর্ষণ ও ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগে দুটি মামলা দায়ের করেছেন। মামলায় পাঁচজনকে আসামি করা হয়েছে। তিন আসামিকে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। অপর আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

পঞ্চগড়ের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সার্কেল) সুদর্শন কুমার রায় জানান, এ ঘটনায় তিন যুবককে গ্রেফতার করা হয়েছে। ওই দুই কিশোরীর ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। প্রকৃত ঘটনা জানার জন্য আসামিদের জিজ্ঞাসাবাদ চলছে।

dhakatribune.

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে